একটি চিরকুটে কিছু শব্দ, অত:পর একই রশিতে ঝুলে পড়লো স্বামী-স্ত্রী


মোঃ সাকিল হোসেনঃ ঠাকুরগাঁও জেলার রাণিশংকৈল উপজেলার লেহেম্বা ইউনিয়নের চাপোড় পার্বতীপুর বিরাশী এলাকার একটি বাড়িতে একই রশিতে ঝুলন্ত অবস্থায় অন্তঃসত্তা স্ত্রী ও তার স্বামীর মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। ১৬ জুন (মঙ্গলবার) এই ঘটনা ঘটে।

মৃতদের নাম- বিপুল কুমার (২৫) ও তার স্ত্রী পারুল রাণী (২২)।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, বিরাশী এলাকার মৃত শেঠ কুমার রায়ের ছেলের সাথে আট মাস আগে বিয়ে হয় বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার আধার দিঘী বড় কোর্টপাড়ার ঝাটালুর মেয়ে পারুলের। পারুল ৭ অন্তঃসত্তা ছিলেন।

এলাকাবাসি জানান, যে ঘরে তাদের লাশ পাওয়া গিয়েছে সেটা থেকে উৎকট রাসায়নিক দ্রব্যের গন্ধ আসছিল। সেখানে একটা চিরকুটে লেখা ছিল ‘আমাদের মৃত্যুর জন্য কেউ দায়ী নয়’।

চিরকুটে আরও লেখা ছিল- আমরা নিজের ইচ্ছায় মৃত্যুবরণ করছি। কথা হচ্ছে একটা, আমার বাবা যে যৌতুক দিয়েছিল তা ফেরত দিতে বলছি না। আমাদের ইচ্ছে একটাই যে, আমার গহনা আর ৪টি আংটি, একটি মোটরসাইকেল ও জিনিসপত্র পড়ছিল, সেগুলো যেন আমার বাবা-মা পায়। আমাদের সমাধি পাশাপাশি করা হোক।

বিপুল কুমারের পালিত মা মমিতা জানান, প্রতিদিনের মতো সোমবার খাওয়া-দাওয়া শেষে সবাই ঘুমাতে যাই। কিন্তু পরের দিন সকালে বউমাকে ঘুম থেকে উঠার জন্য ডাকাডাকি করলেও না উঠায় বা কোনো সাড়াশব্দ না দেওয়ায় ঘরের কাছে গিয়ে দরজা ঠেলতেই দরজা খুলে যায়। পরে দেখি তারা স্বামী-স্ত্রী ঘরের টিনের বাঁশের সাথে একই রশিতে ঝুলে রয়েছে।

এ বশীহয়ে রাণীশংকৈল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আব্দুল মান্নান জানান, মেডিক্যাল রিপোর্ট না আসা পর্যন্ত ঘটনার রহস্য বলা যাচ্ছে না।


একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে