মেয়ের বিপদে দিল্লিতে চলে আসলেন সাইফ

মেয়ের বিপদে দিল্লিতে চলে আসলেন সাইফ

বিনোদন ডেস্ক: মাদক কেলেঙ্কারিতে নাম এসেছে বলিউড তারকা সারা আলী খানের। শনিবার মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ ব্যুরোর (এনসিবি) অধিদপ্তরে ছয় ঘণ্টা সাইফকন্যা সারাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। সেখানে অনেক কিছুই স্বীকার করেছেন সারা। তবে মেয়ের এমন বিপদের দিনে পাশে নেই বাবা সাইফ আলী খান। স্ত্রী কারিনা কাপুর খানকে নিয়ে হঠাৎ করেই তিনি দিল্লি চলে গেলেন। সেখানেই হবে কারিনার ‘লাল সিং চাড্ডা’ সিনেমার বাকি অংশের শুটিং। আর কারিনাকে সঙ্গ দেবেন স্বামী সাইফ।

এসব ঝামেলা থেকে নিজেকে সরিয়ে রাখতে আপাতত দিল্লিকেই ‘নিরাপদ’ বলে মনে করছেন সাইফ আলী খান। তাই ‘লাল সিং চাড্ডা’র শুটিং শেষ না হওয়া পর্যন্ত তিনি কারিনা ও তৈমুরকে নিয়ে আপাতত দিল্লিতে নিজেদের খানদানি পতৌদি হাউজেই থাকবেন।

ভারতের বেশ কয়েকটি গণমাধ্যম সূত্রের দাবি, সারার এই মাদককাণ্ডে জড়িয়ে যাওয়ার ঘটনায় সাইফ পরোক্ষভাবে আঙুল তুলেছেন প্রাক্তন স্ত্রী অমৃতা সিংয়ের দিকে। সাইফের সঙ্গে বিচ্ছেদের পর মা অমৃতা একক অভিভাবক হিসেবে সারা ও ইব্রাহিমকে বড় করেছেন। ইন্ডাস্ট্রিতে অমৃতা যথেষ্ট কড়া অভিভাবক বলেই পরিচিত। এর আগে অমৃতা যেভাবে সন্তানদের বড় করেছেন, সাইফ তার খোলামেলা প্রশংসা করেছেন। যদিও এই যাত্রায় একেবারে ১৮০ ডিগ্রি ভিন্নমত পোষণ করছেন সাইফ।

এনসিবির জেরায় সুশান্তের সঙ্গে প্রেমের কথা স্বীকার করেছেন সারা আলী খান। তাঁর সঙ্গে ব্যাংকক সফরের কথাও বলেছেন। বলেছেন ফার্মহাউজে আর দ্বীপে একসঙ্গে পার্টি করার কথাও। আরও জানান, সারাকে সিঁড়ি হিসেবে ব্যবহার করে সুশান্ত বলিউডে আরও ওপরে উঠতে চেয়েছিলেন, আরও সিনেমায় সুযোগ পেতে চেয়েছিলেন। তাই সারাই এই সম্পর্কের ইতি টানেন। এরপর রিয়ার সঙ্গে সম্পর্ক হয় সুশান্তের‍। আর মায়ের সঙ্গে থেকে এগুলো সারা কীভাবে করল, এ নিয়ে বিরক্ত সাইফ।

তাই এখন সবকিছু থেকে দূরে গিয়ে নিরিবিলি পরিবেশে পাবিবারিক ভবনেই কাটাবেন আগামী দিনগুলো। ক্রমশ দূরত্ব বাড়ছে বলিউডের এই বাবা আর মেয়ের।

অন্যদিকে সারার পাশে সাইফ না থাকলেও, নাতনির পাশে দাঁড়িয়েছেন দাদি শর্মিলা ঠাকুর। সেন্সর বোর্ডের সাবেক চেয়ারপারসন ‘সত্যজিতের নায়িকা’ শর্মিলা। সব ক্ষমতা আর যোগাযোগ কাজে লাগিয়ে তিনি নাতনিকে এসব থেকে মুক্ত করতে চান। ইতিমধ্যেই সারার ফোন বাজেয়াপ্ত করেছে এনসিবি। সারার গত তিন বছরের সব লেনদেনও খতিয়ে দেখা হচ্ছে। ব্যাংক অ্যাকাউন্টে থাকা অর্থেরও হিসাব নিচ্ছে এনবিসি।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে